রথ উৎসবের প্রস্তুতি তুঙ্গে, সেজে উঠেছে বাঁকুড়া

  • By UJNews24 Web Desk | Last Updated 01-07-2022, 02:42:18:pm

আজ রথ যাত্রা। করোনাকালে দু'বছর বন্ধ ছিল সব ধরনের অনুষ্ঠানই৷ দু’বছর মানুষ কোনও উৎসবে মেতে ওঠার সুযোগ পাননি করোনা নামক অতিমারির জন্য রাজ্য সরকারের বেশ কিছু নিয়মকানুন লাগু থাকায়৷ বর্তমানে সেসব নিয়মকানুন অনেকটাই শিথিল করা হয়েছে৷ সব মন্দিরের দরজাও ভক্তদের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে৷ শুরু হয়েছে উৎসব অনুষ্ঠানও৷ ফলে গত দু’বছর রাজ্যের অন্যান্য জেলার মতো বাঁকুড়াও বাদ ছিল না সেই তালিকা থেকে৷ রাজ্যের অন্যান্য জেলার মতো বাঁকুড়ার মানুষও করোনা বিধিনিষেধ শিথিল হয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার অপেক্ষায় ছিলেন৷ চলতি বছর সেই অপেক্ষার অবসান ঘটতে চলেছে৷

কোভিড বিধি শিথিল হওয়ার পর সব ফের স্বাভাবিক হতে শুরু করেছে৷ ফলে দীর্ঘ দু’বছর বন্ধ থাকার পর সারা দেশের সঙ্গে বাঁকুড়া শহরও মেতে উঠবে প্রাচীন এই উৎসবে। শহরের চক বাজার শ্যামসুন্দর জিউ রথ কমিটি ও পাঠক পাড়া, ব্যাপারিহাট রথ কমিটির উৎসব ঘিরে মানুষের উন্মাদনা তুঙ্গে। সকলেই অপেক্ষায় রয়েছেন কখন সেই পরিচিত মুহূর্তের সাক্ষী হতে পারবেন৷ কখন সেই ফের দু’বছর আগের মতো রথের রশি টেনে দিনটি উদযাপন করতে পারবেন তাঁরা৷ ইতিমধ্যেই আলোক মালায় সাজিয়ে তোলা হয়েছে রথ দু'টিকে। তা নিয়েও মানুষের উদ্দীপনার অন্ত নেই৷

চক বাজার শ্যামসুন্দর রথ কমিটির পক্ষে নান্টু কুণ্ডুর দাবি, ‘‘রথটা কত বছরের পুরনো তা আমরা জানিও না৷ শুনেছি ব্রিটিশ আমল থেকে চলে আসছে৷ পুরনো রথের বদলে একটি নতুন রথ করা হয়েছে৷ নবনির্মিত রথটি ১৩৬৩ সালের৷ নতুন রথটিরই ৬৬ বছর হল৷’’ তিনি জানান, রাধাকৃষ্ণের মূর্তিকে রথে চাপিয়ে শহর পরিক্রমা করা হবে। বিগত ২০১৯ পর্যন্ত যেভাবে রথ উৎসব উদযাপন করা হয়েছে, চলতি বছরেও সেই ধারা অব্যাহত থাকবে বলে তিনি আশাপ্রকাশ করেন। ইতিমধ্যেই গ্রাম্য মানুষের কাছে প্রচার করা হয়েছে৷ আশা করা যায়, আগের মতোই সফল হবে এই রথ উদযাপন৷চক বাজার শ্যামসুন্দর রথ কমিটির পক্ষে নান্টু কুণ্ডুর দাবি, ‘‘রথটা কত বছরের পুরনো তা আমরা জানিও না৷ শুনেছি ব্রিটিশ আমল থেকে চলে আসছে৷ পুরনো রথের বদলে একটি নতুন রথ করা হয়েছে৷ নবনির্মিত রথটি ১৩৬৩ সালের৷ নতুন রথটিরই ৬৬ বছর হল৷’’ তিনি জানান, রাধাকৃষ্ণের মূর্তিকে রথে চাপিয়ে শহর পরিক্রমা করা হবে। বিগত ২০১৯ পর্যন্ত যেভাবে রথ উৎসব উদযাপন করা হয়েছে, চলতি বছরেও সেই ধারা অব্যাহত থাকবে বলে তিনি আশাপ্রকাশ করেন। ইতিমধ্যেই গ্রাম্য মানুষের কাছে প্রচার করা হয়েছে৷ আশা করা যায়, আগের মতোই সফল হবে এই রথ উদযাপন৷

পাঠক পাড়া, ব্যাপারিহাট রথ কমিটির সদস্য হরি প্রসাদ জিউরাজিকা জানান, ১২০ বছরের পুরনো রথ। রথটি খারাপ হয়ে যাওয়ায় ২০০৮ সালে তা পুনর্সংস্কার করা হয়৷ পাঠক পাড়া মন্দির থেকে বিগ্রহ এনে রথে চাপিয়ে সারা শহর পরিক্রমা করা হয়। বিগত দু'বছর বন্ধ থাকার পর এবছর মানুষের উৎসাহ উদ্দীপনা তুঙ্গে বলে তিনি জানান।

 

Share this News

RELATED NEWS